এইচএসসি বিজ্ঞান বিভাগ পরীক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের বিষয়গুলোর জন্য করণীয়

Speaking English Easy Techniques
July 21, 2016
এসএসসি পরীক্ষার পর
July 21, 2016
Show all

এইচএসসি বিজ্ঞান বিভাগ পরীক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের বিষয়গুলোর জন্য করণীয়

পদার্থবিজ্ঞান
বিষয়টি খুব যত্ন নিয়ে পড়তে হয়। কারণ বারবার অনুশীলন না করলে ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এজন্য যা পড়েছ সব রিভিশন দিয়ে হলে যাবে। পদার্থবিজ্ঞানে রচনামূলক ও সংক্ষিপ্ত দুই ধরনের প্রশ্ন থাকবে। এর সঙ্গে কিছু গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে হয়। পদার্থবিজ্ঞানের ১ম ও ২য় পত্রের প্রশ্নের তিনটি ভাগ রয়েছে। ১ম পত্রের প্রথম অংশে রয়েছে বলবিজ্ঞান ২য় অংশে তাপবিজ্ঞান এবং ৩য় অংশে রয়েছে শব্দবিজ্ঞান। প্রত্যেক অংশের জন্য অন্তর্ভুক্ত অধ্যায়গুলো থেকে সংক্ষিপ্ত ও রচনামূলক দুই প্রকার প্রশ্নের প্রস্তুতি নিতে হবে। ২য় পত্রের ক্ষেত্রে ১ম অংশে রয়েছে বিদ্যুৎ ও চুম্বক, ২য় অংশে আলোকবিজ্ঞান ও ৩য় অংশে আধুনিক পদার্থবিজ্ঞান। পদার্থবিজ্ঞানের গাণিতিক সমস্যার ওপর অনেক গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ প্রতিটি প্রশ্নের সঙ্গে একটি গাণিতিক সমস্যা থাকে, এ ক্ষেত্রে দেখা যায় তোমরা একক লিখতে ভুল কর। একক ভুল করলে এক নাম্বার কাটা হয়। এজন্য একক লেখার ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

গণিত
বিজ্ঞান বিভাগে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গণিত। গণিত বিষয়ে ভালো ফলাফলের ১ম শর্ত অনুশীলন। অনুশীলন ছাড়া গণিতে ভালো করা সম্ভব নয়। অন্যান্য বিষয়ের মতো গণিতেও দুটি পত্র রয়েছে। ১ম পত্রে রয়েছে বীজগণিত, ত্রিকোণমিতি ও জ্যামিতি। ত্রিকোণমিতিতে ভালো করার জন্য ত্রিকোণমিতিক সূত্রগুলোর ওপর ভালো দখল রাখতে হবে। সূত্রগুলো বারবার পড়ে খাতায় লিখে অনুশীলন করতে হবে। জ্যামিতির ক্ষেত্রেও স্থানাঙ্ক, সরলরেখা, বৃত্ত, কণিক ও ভেক্টরের যাবতীয় তথ্য ও সূত্র সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা রাখবে। ২য় পত্রে রয়েছে ক্যালকুলাস, বলবিদ্যা ও বিচ্ছিন্ন গণিত। ক্যালকুলাসে ভালো করার জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ ফাংশনের যোগজ ও অন্তরক জেনে রাখা জরুরি। বিচ্ছিন্ন গণিতে গাণিতিক সমস্যার পাশাপাশি কিছু রচনামূলক প্রশ্ন রয়েছে। এসব প্রশ্নের ওপর ধারণা রাখতে হবে।

রসায়ন
রসায়নে ভালো করার জন্য রাসায়নিক বিক্রিয়া, সংকেত, যোজনী ইত্যাদি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা রাখতে হবে। এগুলো মনে রাখার জন্য বারবার চর্চা করতে হবে। এর পাশাপাশি রয়েছে গাণিতিক সমস্যা । তাই গাণিতিক সমস্যার ওপর নিয়মিত অনুশীলন করবে। ২য় পত্র জৈব রসায়ন। অনেক রাসায়নিক বিক্রিয়া রয়েছে যেগুলো নির্দিষ্ট তাপমাত্রা ও প্রভাবকের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হয়। তাই এগুলো সঠিকভাবে লিখতে হবে। রসায়নে কোনো মতেই সংকেত ভুল করা যাবে না। নৈর্ব্যক্তিক অংশে ভালো করার জন্য সব বই ভালোভাবে পড়তে হবে। এতে সৃজনশীল অংশের উত্তর দেয়ার ক্ষেত্রে সুবিধা হবে।

জীববিজ্ঞান
জীববিজ্ঞানের দুটি পত্রের ১ম পত্রে রয়েছে উদ্ভিদবিজ্ঞান ও ২য় পত্রে রয়েছে প্রাণিবিজ্ঞান উদ্ভিদবিজ্ঞান ও প্রাণিবিজ্ঞান উভয়ের ক্ষেত্রে রচনামূলক অংশের পাশাপাশি চিত্র একটি গুরুত্ব্বপূর্ণ অংশ। চিত্র ভালো করার জন্য নিয়মিত চর্চা করা জরুরি। চিত্রে বিভিন্ন অংশ চিহ্নিত করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিজ্ঞানের চারটি বিষয়ের প্রত্যেকটিতে ব্যবহারিক পরীক্ষা আলাদাভাবে অনুষ্ঠিত হয়। ব্যবহারিকে ভালো করার জন্য নিয়মিত অনুশীলন আবশ্যক পরীক্ষার আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। তাই পড়াশোনার পাশাপাশি নিজেদের শরীরের প্রতি খেয়াল রেখো। পরীক্ষার আগে বেশি রাত জেগে পড়াশোনা করবে না। সবশেষে সব শিক্ষার্থীর জন্য আগাম শুভ কামনা রইল।

1 Comment

  1. MD FORKAN says:

    thanks for your advise

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *