ই-কমার্স ও সম্ভাবনা
March 6, 2018
ডুডলিং
March 11, 2018
Show all

চাকরিতে প্রবেশের সম্পূর্ণ প্রস্তুতি পর্ব -২

Busting Some Common Career Myths

আমরা আমাদের চাকরির সন্ধান শুরু করার আগে আসুন কিছু সাধারণ ক্যারিয়ার মিথ নিয়ে আলোচনা করি। এই প্রচলিত বিশ্বাসগুলো আর কিছুই না আপনার ক্যারিয়ারের পছন্দ ও আকাঙ্ক্ষা কে সীমিত করে ফেলবে। অবশ্যই এই ধারণাগুলো এড়িয়ে চলুন।

Career Myth 1: “There is only one perfect career field for me.”
হ্যাঁ, এমন ব্যক্তিরা আছেন যারা তাদের কর্মজীবনে একটি ট্র্যাক অনুসরণ করতে পছন্দ করেন। কিন্তু অধিকাংশই আমরা বলে থাকি আরও বেশি অনুসন্ধান করার। প্রতিদিন আমরা নতুন সুযোগ খুঁজে বের করবো যা আমাদের সাথে যায় এবং লোভনীয়। নিয়োগকর্তাদের কাছে এমন প্রার্থীদের চাহিদা রয়েছে যাদের আছে বিভিন্ন বিষয়ে আগ্রহ, দক্ষতা এবং জ্ঞান। শধুমাত্র একটি সীমানায় আপনি সীমাবদ্ধ না থেকে আরও বেশি অনুসন্ধান করুন। নিজেকে তৈরি করুন। এক্সপেরিমেন্ট করতে ভয় পেলে হবে না, এমনকি এটি ভুল হলেও।

Career Myth 2: “My career choices need to last a lifetime”

আমরা সবাই পরিবর্তনের সাথে শুধু মানানসই নই এমনকি আমরা পরিবর্তন পছন্দও করি। আমাদের চুলের স্টাইল থেকে শুরু করে আমাদের মোবাইল ফোন, পুরানো কোন কিছু ফেলে নতুন কিছু সবাই খুব আগ্রহের সাথেই পরিবর্তন করে থাকি। তাহলে কেন না আমাদের ক্যারিয়ার। আমরা মনে করি এটি একদমই অযুক্তিক আশা করা যে আমাদের ক্যারিয়ার সবসময় একই থাকবে বা এটি কে পরিবর্তন করা যাবে না। গড়ে একজন ব্যক্তি তার কর্মজীবনে ৫ থেকে ৭ বার পরিবর্তন ঘটায়। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের চাকরির রিপোর্টের অনুযায়ি আগামী ২০২০ সালের মধ্যে এমন সব দক্ষতার চাকরির জন্য লোক দরকার হবে যেগুলোকে এখন হয়তো কোন গুরুত্বই দেয়া হয় না। তাহলে একটি মাত্র জায়গায় ক্যারিয়ারের জন্য লেগে থাকার থেকে, ক্রমাগত নতুন কিছু শিখার উপর গুরুত্ব প্রদান করুন।

Career Myth 3: “There are only a couple of industries I can work in”.

IT ইন্ডাস্ট্রি শুধুমাত্র IT ব্যাকগ্রাউন্ডের মানুষের জন্য, তাই তো? ভুল, প্রত্যেক কোম্পানিতে অনেক ধরনের পদ থাকে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি Infobip এর ক্যারিয়ার পৃষ্ঠায় যান তাহলে এটি IT কোম্পানি হওয়া স্বত্বেও প্রচুর এমন পদ দেখতে পারবেন যার জন্য আপনার কোন IT দক্ষতার প্রয়োজন নাই। একটি ক্যারিয়ার ইন্ডাস্ট্রি সিলেক্ট করা আপনার পদ সিলেক্টের সাথে সংযুক্ত নয়, বরং কি ধরনের পরিবেশের সাথে কাজ করতে চান তার সাথে সংযুক্ত। কি ধরনের পরিবেশ এবং সংস্কৃতির সাথে কাজ করতে চান তা অবশ্যই ক্যারিয়ার বাছাইয়ের সময় মাথায় রাখবেন।

How to Find What You Want and Where to Get It

চাকরির সন্ধানে সাফল্যের মূল উপাদান হচ্ছে ফোকাস। এখানে আমরা দেখবো আপনি কিভাবে ফোকাস ধরে রাখতে পারেন এবং আপনার সময় অপচয় কিভাবে রোধ করা যায়।

প্রথমত, ঠিক করুন আপনি কোন ক্যারিয়ার ফিন্ডে যেতে চানঃ

আমরা আগেই বলেছি এমন মনে করার কোন কারণ নাই যে, আপনার জন্য একটি মাত্র ক্যারিয়ার এবং নির্দিষ্ট কিছু ক্যারিয়ার ইন্ডাস্ট্রি আছে। তো নিজেকে আবদ্ধ এবং সীমিত মনে করার কোনই কারণ নাই।  যখন  চাকরি খোঁজার সময় আসে তখন আপনাকে এটি চিন্তা করা কোন দরকার নাই যে আপনি সারাজীবন কি করতে চান। শুধুমাত্র চিন্তা করুন এখন আপনি কি করতে চাচ্ছেন?

প্রথমে আমরা বিভিন্ন অপশন বিবেচনা করবো। যদি আপনার মনে হয় আপনি মার্কেটিং এ ক্যারিয়ার গড়বেন, তাহলে আপনি একটি ওয়েব ডিজাইনিং টিম, একটি ইভেন্টের দল বা কোন সোশ্যাল মিডিয়া টিমে যোগদানের কথা মাথায় রাখতে পারেন। এমনকি আপনি কোন কোম্পানির HR ডিপার্টমেন্টে যোগদানের জন্যও আবেদন করতে পারেনআপনি যখন বিভিন্ন অপশন বাছাই করবেন তখনই আপনি বুঝতে পারবেন কোন ইন্ডাস্ট্রি আপনাকে আকর্ষণ করছে এবং কোনটি করছে না।
আপনার অনুসন্ধানটি সংকুচিত করার জন্য, ফোকাস অর্জন এবং অপ্রাসঙ্গিক সুযোগগুলিতে সময় নষ্ট না করার জন্য এইভাবে ক্যারিয়ার ফিন্ডের অপশন সিলেক্ট করতে পারেন।
শত শত জব বিজ্ঞাপনগুলিতে হারিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে, আপনি এখন নির্দিষ্ট চাকরি ক্ষেত্রের উপর মনোনিবেশ করেছেন, যা আপনাকে চাকরির ইন্টারভিউ এর জন্য প্রস্তুতি নিতে আরও সময় এবং শক্তি দিবে।
Make the Information Come to You

যেহুতু এখন আপনি জানেন আপনি কি চান, তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে এই চাকরির তথ্য আপনি কোথায় পাবেন? প্রতিটি দেশ, অঞ্চলের নিজস্ব জনপ্রিয় কিছু উৎস থাকে, এর মধ্যে হয়তো কিছু আপনি জানেন। যতবেশি সম্ভব এমন উৎস খুঁজে বের করুন। একবার আপনি এগুলো খুঁজে পেলে, প্রতিদিন আপনাকে ঐ ওয়েবসাইট বা পেইজে যেতে হবে না। Subscribe for new job ads এ ক্লিক করে রাখুন। আপনার পছন্দ অনুযায়ী ফিল্টার করে চাকরির তথ্য খুঁজুন। একটা ভিন্ন মেইল আইডি ব্যবহার করুন। যদি আপনি এমন করে থাকেন তাহলে প্রতিদিন আপনাকে ১০ টি ওয়েবসাইটে ঘুরতে হবে না। আপনার যা প্রয়োজন সব আপনার মেইল ইনবক্সেই চলে আসবে। যখন আপনি এভাবে এগুতে থেকবেন আপনি বুঝতে পারবেন কোন ওয়েবসাইট আপনাকে ভালো তথ্য দিচ্ছে। যদি দেখেন আপনি আপনার প্রয়োজনমত কিছুই তা থেকে পাচ্ছেন না, তাহলে আনসাবস্ক্রাইব করুন। এছাড়া সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলো ব্যবহার করুন চাকরির খোঁজে, কেননা ৯২% কোম্পানি নতুন চাকরির বিজ্ঞপ্তির জন্য ফেসবুক, টুইটার এবং Linkedln এর মত জনপ্রিয় সাইট ব্যবহার করে থাকে।

The Importance of the Right Culture

আপনি সম্ভবত কোম্পানীর সংস্কৃতির কথা শুনেছেন বা হয়ত চাকরির জন্য প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন কারণ আপনি কোম্পানীর সংস্কৃতি বা কালচারের জন্য যোগ্য নন। শুনতে খারাপ লাগলেও, হ্যাঁ এমনটি প্রতিনিয়িত হচ্ছে। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠান এমন প্রার্থী চায় যার নিজস্ব মূল্যবোধ আছে। চাকরি পাওয়ার জন্য আপনার তাদের বুঝাতে হবে কোম্পানির স্বার্থই আপনার জন্য প্রথম।
চাকরির জন্য আবেদন করার সময়, অধিকাংশ প্রার্থী কোম্পানির সংস্কৃতির গবেষণা করেন না। এটি করলে আপনি কোম্পানি সম্পর্কে আরও গভীর ধারণা পাবেন। এটি আপনাকে বুঝতে সাহায্য করবে তারা কি বিশ্বাস করে, তারা কি ধরণের প্রার্থী খুঁজছেন।  আপনি কিভাবে তা জানবেন? চাকরির বিজ্ঞাপনগুলো কোম্পানির সংস্কৃতির একটি অংশ উপস্থাপন করে থাকে। বিজ্ঞাপনটি ভালোভাবে পড়ুন। প্রত্যেকটি শব্দ, গঠন, বাক্যাংশ এবং এর অন্তর্নিহিত অর্থ বুঝতে চেষ্টা করুন। আপনি যখন সিলেক্ট করে ফেলবেন আপনি কোন চাকরি খুঁজছেন, তাহলে এমন সব কোম্পানি্  খুঁজুন যার সংস্কৃতি আপনার জন্য সবথেকে উপযুক্ত। মনে রাখবেন কোম্পানি খুঁজার আগে নিজের কথা ভাবুন। আপনি কি ধরণের তার উপর নির্ভর করে প্রতিষ্ঠান খুঁজুন।

এই ভাবে, আপনি এমন একটি কোম্পানী পাবেন যেখানে আপনি কাজের পরিবেশ এবং আপনার সাথে কাজ করে এমন লোকেদের উপভোগ করবেন, যা আপনাকে আপনার ক্যারিয়ারের ক্রমবর্ধমান প্রসারে সাহায্য করবে।

আপনি সময় নিন এবং খুঁজে বের করুন। একবার আপনি যখন পেয়ে যাবেন  আপনি কি ধরণের কাজের পরিবেশে যেতে চান তারপর ভুলে গেলে হবে না একটি ভালো নেটওয়ার্কের গুরুত্ব। যা নিয়ে আমেরা পরবর্তি পর্বে আলোচনা করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *