ইতিবাচক চিন্তার মাধ্যমে নিজেকে করুন সফল ও সুখী – পার্ট ১
March 12, 2018
ইতিবাচক চিন্তার মাধ্যমে নিজেকে করুন সফল ও সুখী – পার্ট 2
March 19, 2018
Show all

যে ৭ টি জিনিস , এই SSC পরিক্ষার বন্ধে সবার শেখা উচিত ।

SSC পরিক্ষা শেষ মানে, ২ মাসের ছুটি, বন্ধ, মজা, বন্ধুদের সাথে ঘুরাঘুরি, ছবি দেখা, সেলফি তোলা, তার পর রেজাল্ট এর পর ভর্তি প্রস্তুতি।

কিন্তু একটু planning করে নিলে, এই সময়টা ছেলে মেয়েরা সারাজীবনের জন্য কাজে লাগাতে পারবে। সবার আগেই আমি যেটা বলে নিতে চাই, পরিক্ষা যেমন হয়ে গেছে, সেটা নিয়ে দুশ্চিন্তা করা যাবে না, পরিক্ষার ফলাফল যাই হোক না কেন, জীবনের সেখানেই শেষ না, life এর প্রতি positive mind থাকতে হবে। এর পর কলেজ ভর্তির একটা ব্যাপার থাকে, পছন্দের কলেজে ভর্তি না হতে পারলে, জীবনের মুল্যবান সময় কে নষ্ট করা যাবে না। কাজে লাগাতে হবে প্রতিটা সময়। কারন SSC পর্যন্ত ছিল academic foundation building phase, world যেভাবে fast changing, তাতে professional learning phase এখন থেকেই শুরু হয়ে যাওয়া উচিত।

এখানে যেই জিনিস গুলো শেখার উপর আমি গুরুত্ব দিতে চাই, সেগুলা এখন থেকে শুরু করলে, ক্যারিয়ার শুরু করার আগ পর্যন্ত, চর্চা থাকলে, ততদিন জিনিস গুলো নখদর্পণে চলে আসবে-

  1. MS office, email, browsing, how to properly search or research on topic:

প্রথম জিনিস টি এখন থেকেই ভালভাবে শিখে নেয়া উচিত সেটা হল, MS word, excel. PowerPoint, email করা, basic না কিছুটা Internet use করে কিভাবে কোন কিছু সম্পর্কে research করা যায়, এবং actual research process কি, stages কি, how to completely articulate it. ক্লাস ৬ থেকে যেহেতু এখন ICT শেখান হয়, ক্লাস ৮ এর ICT বইতেই word, excel. PowerPoint, email পরিস্কার ভাবে আছে। English medium school গুলোতে researching অনেক আগে থেকেই শুরু হয়ে যায় almost class 5, তাই ফেসবুক sharing নয় শুধু, শুরু করতে হবে, জিনিস সম্পর্কে authentic source থেকে জানা

   2. Writing skill:

লেখালেখি একটা স্কিল, একটা এটা যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটার উপর বই লেখা যাবে। এটার values যে কত enormous তার উপর ইন্টারনেটে হাজার আর্টিকেল আছে। ছেলেমেয়েরা ভাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরে এসেও, চাকরির ক্ষেত্রে দেখা যায় – বাংলায় বা English এও simple এক পেজ লিখতে পারে না, এই একটি ব্যাপার ই যথেষ্ট. এখন সারাদিন বসে ২০ জন মানুষের interview না নিয়ে, আধা ঘণ্টার একটা  গুগল হেল্প ছাড়া written assessment  নিয়ে নেয়া এটা বুঝতে। তাই বাংলায় এবং ইংলিশ এ লেখালেখি practice করে, পড়ে, research করে জেনে, vocabulary enrich করে, যাদের English speaking দুর্বলতা আছে, সেটা সহ, – improve করার অভ্যাস  করে ফেলতে হবে। প্রতিদিন এক পেজ লিখতে হবে বাংলায়, অ্যান্ড ইংলিশ এ। নিজের কম্পিউটার হোক, নোটখাতায় হোক give date and write one page every day. As I am emphasizing on improving skill of MS word, I will recommend typing it in PC

3. বই পড়ার অভ্যাস করতে হবে, যে কোন বই। আমি এই বয়সকে যেহেতু professional skill development age হিসেবে termed করছি, আমি বলব – নন ফিকশন.

 

 

 

4. Videography, image editing – video এডিটিং, ইমেজ এডিটিং, ফটোশপ, even illustrator, after affects and flash for animation – is a skill that I believe anybody who is above the age 18 should learn, now a days – সামনের দিন এর জন্য এটা খুব ই দরকার হবে। পড়াশোনা চলাকালীন সময় অনেক প্রেজেন্টেশন বানাতে হবে , সেটা যত innovative, creative, to the point informative organized হবে, গোল টা সেই দিতে পরবে। শেখার এই দুনিয়া টা খুব ই মজার। এখন স্মার্ট ফোন এর জন্য অনেক apps দিয়ে এসব খুব easily করে ফেলা যায়।

 

কিন্তু এই সফটওয়্যার গুলো শিখে ফেলতে পারলে, পড়ে চর্চা করতে করতে আর ভালভাবে শেখা হয়ে যাবে। চাকরিতে যেমন সব organization এর একটা HR budget থাকে। তাই কোন resource এখন various skill, dynamic, versatile হলেই, outstand করতে পারবে

 

5. BCS exam – আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশে যারা থাকবে, তাদের একবার হলেও BCS এক্সাম দেয়া উচিত , এবং ভাল করে পড়াশোনা করে। তাই এখন থেকে একটা নোট খাতা রাখবে – এবং বই থেকে পড়াশোনা করে just one page নোট রাখবে। যারা BCS exam দিয়েছে, তাদের কাছ থেকে জানতে পারবে – বাংলা,সাধারন বিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান এসবের জন্য তারা অনেকে ক্লাস ৮,৯ এর বই পড়েছে।

6. Social media engagement – যতগুলো social media platform আছে, সেগুলো বুঝতে হবে, এদের পার্থক্য কোথায়। social media তে অ্যাকাউন্ট থাকা মানেই, বন্ধুদের সাথে সেলফি এবং উটকো পেজ এর পোস্টিং শেয়ার করা নয়, দুই বছর পর কলেজ পেরিয়ে, university তে প্রবেশ করার সময় থেকেই, অনেক part-time কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়। তখন একজন employer এর common practice , candidate এর social media profile দেখে initial assess করে ফেলা। তাই শুধু account খুললে হবে না, platform গুলো বুঝতে হবে এবং এর সাথে society value adding কাজ করতে পারলে, রেগুলার ২ টা বা ৩ টা সেরকম পোস্টিং থেকে, অনেক কিছু শেখা যাবে

7. Club activities – club and extracurricular activities করার কোন সুযোগ হাত ছাড়া করা যাবে না। কোন organized club না হলেও, এলাকাতেই ইভেন্ট, জনকল্যাণমূলক কাজের উদ্যোগ নিতে হবে। কাজ করতে গেলেই জানা যায়, কাজের কত stage আছে, challenge আছে। কত জায়গায় আটকে যেতে হচ্ছে, ঝামেলা হচ্ছে, সেগুলো solve করে কাজ execution করার experience is a rare learning that you can hardly get in a classroom

 

আমি আজকে আমার career advice section এর প্রথমলেখায় এখানেই থেমে যেতে চাই, কারন এটাই অনেক মনে হতে পারে অনেকের কাছে।  কার ও জন্যই আমরা এটাকে বোরিং করতে চাই না। edutubebd.com পোর্টালটি  খোলার পর থেকে, আমাদের social media page গুলোতে , career advice related অনেক query আসে। and It really touches me, when people are actually interested to change their life, just seeking for guidance , as I understand how important It is to have a good advice and a good company at the right time of life. Hopefully I will write in this section regularly

 

Written by:  Sharmin Mahjabin – বর্তমানে EATL এর মার্কেটিং ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করছেন। মার্কেটিং ফিল্ড এ রয়েছে তার প্রায় ১০ বছরের অভিজ্ঞতা। NSU, Dhaka university থেকে পড়াশোনা শেষ করে, উনি গ্রামীনফোন sales থেকে career শুরু করেন। edutubebd.com তার brainchild, যার জন্য তিনি mEducation Allainace Symosium 2016 তে edutube কে প্রেজেন্ট করেছিলেন, বাংলাদেশ থেকে একমাত্র সিলেক্টেড organization ছিল সেটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *